• রবিবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩
Bengal Links

ক্রিপ্টোকারেন্সি আয়ের উপর করের ভিত্তিতে ১৯৪s নামে ভার্চুয়াল অ্যাসেটের নতুন সেকশন নিয়ে আসে কর বিশেষজ্ঞরা

বেঙ্গল লিংকস | সোনালী ঘোষ

প্রকাশিত: আগস্ট ৯, ২০২২, ০৭:৫৬ পিএম


ক্রিপ্টোকারেন্সি  আয়ের উপর করের ভিত্তিতে ১৯৪s নামে ভার্চুয়াল অ্যাসেটের নতুন সেকশন নিয়ে আসে কর বিশেষজ্ঞরা

চলতি অর্থবর্ষের আয়কর রিটার্ন ফাইলের সময় ক্রিপ্টো সম্পদের বিষয়ে যারা উল্লেখ করেনি তাদের আয়কর রিটার্ন ফাইল সংশোধনের সময়সীমা ছিল ৩১জুলাই ২০২২ পর্যন্ত। সরকারী দফতরের তথ্য অনুসারে, শেষ দিনে আয়কর রিটার্ন ফাইল করেছে ৫.৮৩ মিলিয়নেরও বেশি করদাতা। অর্থিক বর্ষের শুরুতে কেন্দ্রীয় সরকার ক্রিপ্টো সম্পদ বা ভার্চুয়াল অ্যাসেটের জন্য একটি পৃথক কর কাঠামো চালু করেন। কর প্রদান করা ছাড়াও ক্রিপ্টোকারেন্সি বিক্রি লাভের উপর বিনিয়োগকারীদের ৩০ শতাংশ কর দিতে হয়। ইক্যুইটিতে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে স্টক মার্কেটে অন্য স্টকের বিপরীতে আর একটি স্টকের ক্ষতি পূরণ করা যেতেই পারে।
কর বিশেষজ্ঞরা জানান, ITR ফাইলের আগেই ২৩৪F ধারা অনুসারে করদাতারা চলতি বছরের ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে যারা আয়কর রিটার্ন ফাইল করেনি  তাঁদের ৫,০০০টাকা জরিমানা দিতে হবে। কিন্ত আয়ের পরিমাণ যদি পাঁচ লক্ষ টাকার কম  হয় তাহলে তাঁদের ১,০০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে। তাই ক্রিপ্টো বিনিয়োগের কোন ক্ষতি হলেও বিক্রয়ের উপর ধার্য করা ট্যাক্স প্রদান করতেই হবে।
আয়কর আইনে ১৯৪s নামে ভার্চুয়াল সম্পদের জন্য একটি নতুন সেকশন নিয়ে আসা হয়েছে। ডিজিটাল সম্পদ স্থানান্তরের সময় অর্থ থেকে কর কেটে নেওয়ার বিষয়টি ১৯৮s ধারায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়। তাছাড়াও কর বিভাগ লেনদেনের সময় এক শতাংশ TDS  কেটে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। যেহেতু গত অর্থবর্ষে ক্রিপ্টোকারেন্সির জন্য করের কোনও নির্দিষ্ট টাইম ছিল না, তাই অনেকে বিনিয়োগকারীই মনে করেছিলেন তাঁদের ভার্চুয়াল অ্যাসেটের উপর কোনও কর দিতে হবে না। অবিলম্বে তাঁদের রিটার্ন সংশোধন করা উচিত। ট্যাক্সম্যান সংস্থার ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার নবীন ওয়াধওয়া বলেন, যদি কোনও ব্যক্তি ৩১ জুলাইয়ের সময়সীমার মধ্যে  ক্রিপ্টোকারেন্সি থেকে হওয়া লাভের বিবরণ আয়কর রিটার্ন দাখিল করার সময় যদি উল্লেখ করতে ভুলে যান, তবে আয়ের রিপোর্ট ভুল বলে গণ্য হবে। সেক্ষেত্রে আইনি মামলা এবং শাস্তি হিসেবে কর না দেওয়ার দায়ে ২০০ শতাংশ জরিমানা দিতে হবে। তার বিরুদ্ধে আইনি মামলাও হতে পারে।