• রবিবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩
Bengal Links

ভুয়ো খবর: সভায় দাঁড়িয়ে অমিত শাহ বুঝতে পারেন মানুষ আর বিজেপিকে ভোট দেবে না

বেঙ্গল লিংকস | আব্দুল্লা হাদি

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২১, ২০২৩, ০৪:০৯ পিএম


ভুয়ো খবর: সভায় দাঁড়িয়ে অমিত শাহ বুঝতে পারেন মানুষ আর বিজেপিকে ভোট দেবে না

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে যে বিজেপি নেতা তথা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ত্রিপুরার একটি সভায় দাঁড়িয়েই বুঝতে পারেন যে এবার মানুষ আর বিজেপিকে ভোট দেবে না। পোস্টে একটি ভিডিও শেয়ার করে এই দাবি করা হচ্ছে। ভাইরাল এই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে শাহ একটি সভায় ভাষণ দিতে গিয়ে বলছেন, “কমলের চিহ্নে ভোট দেবেন তো? এতো আস্তে বললে হবে?” 

তথ্য যাচাই করে আমরা দেখতে পেয়েছি ভাইরাল পোস্টের দাবি ভুয়ো এবং বিভ্রান্তিকর। অমিত শাহের ভাষণের একটি ভিডিওকে সম্পাদিত করে ভুয়ো খবর ছড়ানো হচ্ছে।

সম্প্রতি নির্বাচন কমিশন ত্রিপুরা নির্বাচনের নির্ঘণ্ট প্রকাশ করেছে। ফেব্রুয়ারিতে হবে ভোট। প্রত্যেক ভোটের মতো, এই ভোট শুরু হওয়ার আগে থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো খবর ছড়ানো শুরু হয়ে গিয়েছে। 

ভিডিওর আসল সত্যতা কী?

বিভিন্ন রকম প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চ করে আমরা আসল ভিডিওটি খুঁজে পাই। সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর ইউটিউব চ্যানেল থেকে এই ভিডিওটি ৫ জানুয়ারি তারিখে শেয়ার করা হয়। জানা যায় এটি ৫ জানুয়ারি তারিখে ত্রিপুরার সাবরুম থেকে ‘জন বিশ্বাস যাত্রা’-এর সুচনা সভার ভিডিও। এই সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে শাহ বলেন, কমিউনিস্টরা গত দুই বছরে মানুহের উপর অত্যাচার করেছে এবং বাংলাদেশীদের অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশের রাস্তা খুলে দিয়েছিল এবং ত্রিপুরাকে ড্রাগের কেন্দ্রস্থলে পরিণত করেছিল। বিজেপি আসার পর সব কিছু বন্ধ হয়ে গিয়েছে এবং ত্রিপুরার যুবক সমাজকে সঠিক পথ দেখিয়েছে। অমিত শাহের ভাষণের ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন। উল্লেখ্য, ত্রিপুরার দশক ধরে বাম সরকারের রাজত্ব ছিল। ২০১৮ সালে বিজেপি মানিক সরকারের নেতৃত্বাধীন সিপিএমকে পরাজিত করে সরকার গঠন করে। 

ভারতীয় জনতা পার্টির অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেল থেকেও এই ভিডিওটি আপলোড করা হয়। ২২ মিনিটের ২১ মিনিট ২০ সেকেন্ডের মাথায় অমিত শাহ সভার জনতার উদ্দেশ্যে বলেন, “পদ্মের চিহ্নে ভোট দেবেন তো? বিজেপিকে ভোট দিয়ে মোদীজি, মানিক সাহার হাত মজবুত করবেন তো?” জবাবে জনতা উচ্চস্বরে “হ্যাঁ” উত্তর দেয়। ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন।    

আমরা দুটি ভিডিওকে ফ্রেম-টু-ফ্রেম মিলিয়ে দেখতে পাই যে দুটি ভিডিও একই। অমিত শাহের ত্রিপুরার সভার ভিডিওকে কাটছাঁট করে ভুয়ো দাবি সাথে শেয়ার করে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা হচ্ছে। 

ফলাফল

অমিত শাহের সভায় বিজেপিকে ভোট দেওয়া প্রশ্নের জবাবে না উত্তর দেয়নি জনতা। একটি ভিডিওকে সম্পাদিত করে ভুয়ো দাবির সাথে শেয়ার করা হচ্ছে।